সেকশন

শুক্রবার, ২১ জুন ২০২৪, ৭ আষাঢ় ১৪৩১
Independent Television
ad
ad
 

নিউইয়র্ক তদন্তে প্রশ্নের জবাব দিতে নারাজ ট্রাম্প

আপডেট : ১১ আগস্ট ২০২২, ০৫:০৪ পিএম
নিউইয়র্কের অ্যাটর্নি জেনারেলের প্রশ্নের উত্তর দিতে অস্বীকৃতি জানিয়েছেন সাবেক মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প। বুধবার তার পারিবারিক ব্যবসার আর্থিক লেনদেন নিয়ে তদন্তের জিজ্ঞাসাবাদের জন্য অ্যাটর্নি জেনারেলের কার্যালয়ে হাজির হয়েছিলেন তিনি। সেখান থেকে বেরিয়ে এক বিবৃতিতে তিনি এ কথা জানান।

যুক্তরাষ্ট্রের সংবিধান অনুযায়ী প্রত্যেক নাগরিককে দেয়া অধিকারের অধীনে, প্রশ্নের জবাব দিতে অস্বীকৃতি জানিয়েছেন ট্রাম্প। ঋণ নিতে সুবিধার জন্য নিজের রিয়েল এস্টেট প্রতাষ্ঠানের মূল্য বারিয়ে দেখানো এবং শুল্ক ফাঁকি দিতে সম্পদ লুকানোর অভিযোগ রয়েছে ট্রাম্পের বিরুদ্ধে।

এর আগে, ট্রাম্পের ফ্লোরিডার বাড়িতে সরকারি গোপন নথিপত্রের সন্ধানে তল্লাশি চালায় এফবিআই । এ নিয়ে নেতারা ক্ষুব্ধ প্রতিক্রিয়া জানান রিপাবলিকান নেতারা।

বিবিসি জানায়, ম্যানহাটনে অ্যাটর্নি জেনারেলের অফিসে জেরা করার এক বিবৃতিতে ট্রাম্প নিউইয়র্ক অ্যাটর্নি জেনারেল এবং এই তদন্তের সমালোচনা করেন।

ট্রাম্প বলেন, আমেরিকার সংবিধানের প্রতিটি নাগরিকের যে অধিকার দেয়া আছে, সেটির আওতায় আমি প্রশ্নের জবাব দিতে অস্বীকৃতি জানিয়েছি।

তিনি বলেন, তিনি কোনো অন্যায় করেননি এবং তার বিরুদ্ধে যে তদন্ত হচ্ছে, সেটি তাকে হেয় করার জন্য প্রচারণা।

অ্যাটর্নি জেনারেলের অফিস থেকেও এই জেরার বিষয়ে নিশ্চিত করা হয়েছে। অ্যাটর্নি জেনারেল অফিস জানিয়েছে, তাদের তদন্ত চলবে এবং আইন ও তথ্য প্রমাণ যেদিকে নিয়ে যায় তারা সেদিকে যাবেন।

আইন বিশেষজ্ঞরা বলছেন, ট্রাম্প হয়তো প্রশ্নের জবাব দিতে অস্বীকৃতি জানিয়েছেন কারণ তদন্তের সময় উত্তরগুলো তার বিরুদ্ধেই ব্যবহার করা হতে পারে।

প্রেসিডেন্ট থাকার সময় ট্রাম্প সংবিধানে পঞ্চম সংশোধনী এনেছিলেন। এর ফলে কোন মামলায় অভিযুক্ত ব্যক্তিকে তার নিজের বিরুদ্ধে সাক্ষ্য দেবার জন্য বাধ্য করা যাবে না।

ট্রাম্পের আইনজীবী সংবাদমাধ্যমকে জানিয়েছেন, এই জেরা চার ঘণ্টা পর্যন্ত চলেছে এবং মাঝে-মাঝে দীর্ঘ বিরতি ছিল।

শুরুতেই ট্রাম্প একটি লিখিত বক্তব্য দেন। সেখানে তিনি অ্যাটর্নি জেনারেল এবং এই তদন্তের নিন্দা জানান। একই সাথে তিনি পঞ্চম সংশোধনীতে থাকা অধিকারের বিষয়টি উল্লেখ করেন।

এই তদন্ত শেষ হবার পর অ্যাটর্নি জেনারেল ট্রাম্প এবং তার কোম্পানির বিরুদ্ধে আর্থিক জরিমানার জন্য মামলা করতে পারেন।

ট্রাম্প এবং তার সন্তানদের যাতে কোন জেরার মুখে পড়তে না হয়, সেজন্য নিউইয়র্ক অ্যাটর্নি জেনারেলের বিরুদ্ধে মামলা করতে চেয়েছিলেন তার আইনজীবী।

কিন্তু ফেব্রুয়ারি মাসে নিউইয়র্কের সুপ্রিম কোর্টের বিচারক রায় দেন যে ডোনাল্ড ট্রাম্প এবং তার আরো দুই সন্তানকে অবশ্যই জেরার জন্য হাজির হতে হবে।

ট্রাম্পের বাড়িতে এফবিআইয়ের অভিযান আগামী নির্বাচনে তার জন্য সুফল বয়ে আনবে না। বরং নির্বাচনে অংশ নেয়া কঠিন হয়ে দাঁড়াবে বলে মনে করছেন বিশেষজ্ঞরা। রাজনৈতিক কারণের চেয়ে আইনি জটিলতার কারণে ২০২৪ সালের প্রেসিডেন্টের নির্বাচনে ট্রাম্পের প্রতিদ্বন্দ্বিতা করা কঠিন হয়ে পড়বে বলে মত তাদের।

২০২৪ সালে মার্কিন প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে অংশ নিতে প্রস্তুতি নিচ্ছেন সাবেক প্রেসিডেন্ট ডনাল্ড ট্রাম্প। কিন্তু তার আগে নতুন আইনি মারপ্যাঁচে পড়তে যাচ্ছেন তিনি। এফবিআইয়ের তল্লাশি অভিযানের আইনি গুরুত্ব কতোটুকু, এক বিশ্লেষণে তা তুলে ধরার চেষ্টা করেছে সিএনএন।

সোমবার ডনাল্ড ট্রাম্পের ফ্লোরিডা অঙ্গরাজ্যের মার-এ-লাগো-র বাড়িতে অভিযান চালায় কেন্দ্রীয় গোয়েন্দা সংস্থা এফবিআই। নিজের সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ট্রুথ সোশ্যাল-এ পোস্ট করা বিবৃতিতে ট্রাম্প নিজেই এই তথ্য দেন।

সাবেক প্রেসিডেন্টের বাড়িতে তল্লাশি চালাতে হলে, বিচারিক অনুমোদন লাগে। আর সেক্ষেত্রে বিচারকের কাছে একটি বিস্তারিত হলফনামা উপস্থাপন করে বোঝাতে হয় যে কোন অপরাধ সংঘটিত হয়েছে।

আইনজ্ঞদের মতে, সাবেক প্রেসিডেন্টের বাড়িতে তল্লাশি পরোয়ানা কার্যকর করতে বিশেষ পদক্ষেপ নেয়ার মানে ন্যাশনাল আর্কাইভস এর আগে মার-এ-লাগো থেকে যা উদ্ধার করেছে, তদন্তকারীরা তার চেয়েও বেশি কিছু খুঁজছেন।

মার-এ-লাগোতে নিয়ে যাওয়া হোয়াইট হাউসের ১৫ বাক্স নথিপত্র চলতি বছরের শুরুর দিকে নিয়ে গিয়ে যাচাই বাছাই করে এফবিআই। পরে তা আবারো ন্যাশনাল আর্কাইভসে ফেরত পাঠানো হয়। ফেরত নেয়া বাক্সগুলোর মধ্যে উত্তর কোরিয়ার একনায়ক কিম জং উন এবং সাবেক প্রেসিডেন্ট বারাক ওবামার চিঠিও ছিল।

সোমবারের তল্লাশি বিষয়ে এখনো নিশ্চিত তথ্য মেলেনি। তবে, বিশ্লেষকদের ধারণা ট্রাম্পের বিরুদ্ধে ফৌজদারি আইনের অধীনে বিচার বিভাগের এ তদন্ত চলছে। কেন্দ্রীয় সরকারের নথিপত্র ধ্বংস করা বা সরিয়ে নেয়া, অতি গোপনীয় নথির অপব্যবহার ফৌজদারি অপরাধ।

অনেকেই বলছেন, ফৌজদারি অপরাধে দোষী সাব্যস্ত হলে প্রেসিডেন্ট পদে প্রার্থী হতে বিপাকে পড়তে পারেন ট্রাম্প। তবে, কারও কারও মতে, কংগ্রেসের এমন আইন প্রণয়নের কর্তৃত্ব নেই, যা প্রেসিডেন্ট প্রার্থীর ক্ষেত্রে প্রযোজ্য হবে।

/ই.হ/
যে কারণে এবারের হজে বেশি মৃত্যু এবার পবিত্র হজ পালন করতে গিয়ে এক হাজারের বেশি মুসল্লির মৃত্যু হয়েছে। যাদের বেশিরভাগই মারা গেছেন তীব্র গরমে। অসুস্থ হয়ে চিকিৎসা নিয়েছেন দুই হাজারের বেশি হজযাত্রী।...
পাঁচ বছর পর গত মার্চে পরমাণু অস্ত্র নিয়ে আধা-সরকারি বৈঠকে বসেছিল আমেরিকা ও চীন। ওই বৈঠকে বেইজিং জানায়, তারা তাইওয়ানকে পারমাণবিক অস্ত্র ব্যবহারের হুমকি দেবে না। ওই বৈঠকে উপস্থিত দুজন মার্কিন...
এবার গ্রীষ্মে বিশ্বের বিভিন্ন দেশের তাপমাত্রা আগের বছরকে ছাড়িয়ে যাবে। গত বছরে গ্রীষ্মকালের তাপমাত্রা ছিল ২ হাজার বছরের মধ্যে সবচেয়ে বেশি। সেই রেকর্ডকে ছাড়িয়ে যেতে পারে এবারের গরম। বর্তমানে বিশ্বের...
আবগারি দুর্নীতি মামলায় জামিন পেয়েছেন ভারতের দিল্লির মুখ্যমন্ত্রী অরবিন্দ কেজরিওয়াল। বৃহস্পতিবার দিল্লির আদালত তাঁকে জামিন দেন। তবে, শেষ খবর পাওয়া পর্যন্ত আনুষ্ঠানিকভাবে জামিন আদেশ দেওয়া হয়নি। আদেশ...
আরও বড় আকারের স্ক্রিন ও পাতলা কেসিং নিয়ে বাজারে আসতে যাচ্ছে অ্যাপল ওয়াচ ১০ সিরিজ। এ ছাড়া থ্রিডি প্রিন্টিং টেকনোলজির সাহায্যে তৈরি স্ট্র্যাপে ম্যাগনেটিক প্রযুক্তি ব্যবহার করা হতে পারে। আগামী...
শুক্রবার সকাল ১০টার দিকে টাঙ্গাইল–ময়মনসিংহ আঞ্চলিক মহাসড়কের মধুপুর পৌর শহরের মালাউবাড়ী নামক এলাকায় এ দুর্ঘটনা ঘটে। তবে প্রাথমিকভাবে হতাহতদের পরিচয় পাওয়া যায়নি।
লোডিং...

এলাকার খবর

 
By clicking ”Accept”, you agree to the storing of cookies on your device to enhance site navigation, analyze site usage, and improve marketing.