সেকশন

বৃহস্পতিবার, ১৩ জুন ২০২৪, ৩০ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১
Independent Television
ad
ad
 

প্রথম সেমিফাইনালে ফেবারিট কারা

ভারতের সামনে উড়ে যাবে নিউজিল্যান্ড?

আপডেট : ১৩ নভেম্বর ২০২৩, ০১:১৫ পিএম

ক্রিকেটের চিত্রনাট্য কে লেখে?

২০১৯ বিশ্বকাপের সেমিফাইনালের তিনটা জায়গা নির্ধারিত হয়েই গিয়েছিল। গ্রুপপর্বের শেষ দিনে যেতে হয়নি, তার আগের দিন চতুর্থ স্থানটাও নির্ধারণ হয়ে যায়। সেদিন পাকিস্তান বাংলাদেশের বিপক্ষে নেমেছিল অবিশ্বাস্য এক সমীকরণ মাথায় নিয়ে। বাংলাদেশকে ৩১৬ রানে হারাতে পারলেই শুধু সেমিফাইনালে যেতে পারত দলটি।

তখনো পর্যন্ত ওয়ানডেতে ৩০০ রানের বেশি ব্যবধানে কোনো দল কখনো জিততে পারেনি। ২০১৯ সালের সে ম্যাচে পাকিস্তান প্রথমে ব্যাট করে তুলেছিলই ৩১৫ রান।

২০২৩ বিশ্বকাপে ফেরা যাক। ১২ নভেম্বর গ্রুপপর্ব শেষ। ১১ নভেম্বর নিজেদের শেষ ম্যাচ খেলতে নেমেছে পাকিস্তান। এবারও তাদের সেমিফাইনাল খেলার স্বপ্ন টিকে ছিল, এবারও তাদের সামনে প্রায় অসম্ভব এক লক্ষ্য। এবার ইংল্যান্ডকে তাদের হারাতে হতো ২৮৭ বা এর বেশি ব্যবধানে।

ওয়ানডেতে এর চেয়ে বেশি ব্যবধানে জেতার রেকর্ড আছে পাঁচটি। এবারের বিশ্বকাপেই দুটি ৩০০ রানের বেশি ব্যবধানের জয় দেখা গেছে। কিন্তু পাকিস্তান কোনো সুযোগই পায়নি। উল্টো হেরে বসেছে।

দুবারই পাকিস্তানের সঙ্গে পাল্লাটা ছিল নিউজিল্যান্ডের। দুবারই চতুর্থ দল হিসেবে সেমিফাইনালে উঠেছে কিউইরা এবং দুবারই তাদের প্রতিপক্ষ ভারত।

প্রেক্ষাপট কিছুটা ভিন্ন। গতবার গ্রুপপর্বের শেষ ম্যাচে অস্ট্রেলিয়া হেরে না বসলে সেমিফাইনালে ভারত নয়, তাসমান প্রতিবেশীদেরই পেত নিউজিল্যান্ড। ওদিকে এবার ভারত প্রথম ম্যাচ থেকেই এমনভাবে খেলছে যে টুর্নামেন্টের অর্ধেক পেরোতেই বোঝা গেছে গ্রুপপর্বে এবারও শীর্ষে থাকবে স্বাগতিক দল। এবং টানা নয় জয় নিয়ে সেমিফাইনালে উঠেছে দলটি।

ফল, টানা দ্বিতীয়বারের মতো বিশ্বকাপের সেমিফাইনালে মুখোমুখি ভারত-নিউজিল্যান্ড। এবারও, পরিস্কার ব্যবধানে এগিয়ে থাকবে ভারত।

বোল্টের ফর্মের ওপর অনেক কিছু নির্ভর করছে। ছবি: রয়টার্স

একদিকে দুর্দান্ত ফর্মে থাকা স্বাগতিক দল, যারা পুরো বিশ্বকাপে শুধু ঘন্টা কয়েকের জন্যই একটু অস্বস্তিতে ছিল। অন্যদিকে টানা চার ম্যাচ হেরে যাওয়া একদল যারা চোট সমস্যার কারণে সেরা একাদশ নামাতে পারবে কি না, এ নিয়েই সন্দেহ আছে। বিশ্বকাপে এখন পর্যন্ত পারফরম্যান্স বিবেচনা করলে আগামী ১৫ নভেম্বর মুম্বাইয়ের ওয়াংখেড়ে স্টেডিয়ামে তাহলে একপেশে একটা ম্যাচই দেখা যাবে। চার বছর পর প্রতিশোধ নিতে যাচ্ছে ভারত।

আসলেই কি তাই?

ম্যাচের ভেন্যু এ ম্যাচকে কিছুটা হলেও আগ্রহ বাড়াচ্ছে। ২০১৯ সালে বৃষ্টি তথা কন্ডিশনের কারণে রাতারাতি ম্যাচের ভাগ্য বদলে গিয়েছিল, এবারও তেমন কিছুর সম্ভাবনা উড়িয়ে দেওয়া যাচ্ছে না।

একটু ব্যাখ্যা করা যাক।

এবার গ্রুপপর্বে মুম্বাইয়ে চারটি ম্যাচ হয়েছে। মুম্বাইয়ের উষ্ণ আবহাওয়া ও ব্যাটিং সহায়ক উইকেট প্রতিটি ম্যাচেই মনে রাখার মতো কিছু উপহার দিয়েছে। ইংল্যান্ডকে পেয়ে দক্ষিণ আফ্রিকা ৩৯৯ রান তুলেছিল। সেই দক্ষিণ আফ্রিকা বাংলাদেশের বিপক্ষে ৩৮২ রান করেছে। শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে ভারত তুলেছে ৩৫৭ রান। তিনটি ম্যাচেই রান চাপায় পিষ্ট হয়ে প্রতিপক্ষ কোনো প্রতিদ্বন্দ্বিতা গড়তে পারেনি।

ইংল্যান্ড হেরেছিল ২২৯ রানে। বাংলাদেশ মাহমুদউল্লাহর সেঞ্চুরিতে মুখ রক্ষা করেছিল ১৪৯ রানের হারে। শ্রীলঙ্কা অবশ্য ম্যাচ শেষে মুখ লুকাতেই ব্যস্ত ছিল। ৩৫৮ রানের লক্ষ্যে নেমে বড় একটা সময় বিশ্বরেকর্ডের আশঙ্কায় থেকে ৫৫ রানে গুটিয়ে গিয়েছিল।

গত ৭ নভেম্বর প্রথম মুম্বাইয়ে কোনো দল প্রথমে ব্যাট করতে নেমে ৩০০ রান তুলতে ব্যর্থ হয়েছে। কিন্তু আফগানিস্তানের তোলা ২৯১ রানের জবাবে ৯১ রানে ৭ উইকেট হারিয়ে ফেলে অস্ট্রেলিয়া। এরপর যা হয়েছে, তা তো ক্রিকেটীয় রূপকথারই অংশ। গ্লেন ম্যাক্সওয়েল ২০১ রানের চোখ কপালে তোলা এক ইনিংসে অস্ট্রেলিয়াকে খাদের কিনার থেকে উদ্ধার করেছেন।

ম্যাক্সওয়েল সে সঙ্গে আরেকটি ব্যাপার নিশ্চিত করেছেন, উইকেটে একটু সময় কাটাতে পারলেই ওয়াংখেড়েতে রান-ফোয়ারা ছুটবে। এবং মুম্বাইয়ে গা-জোয়ারি ব্যাটিংয়েরই জয়জয়কার। দক্ষিণ আফ্রিকা দুই ম্যাচে দেখিয়েছে, এমনকি ভারত যেদিন সাড়ে তিন শ রান করেছে সেদিনও শ্রেয়াস আইয়ারই বেশি সফল ছিলেন। আফগানিস্তানের হয়ে ইব্রাহিম জাদরান কিংবা রশিদ খান দেখিয়েছেন, শুধু শক্তি কাজে লাগাতে পারলেই মুম্বাইয়ে রান তোলা সম্ভব। ম্যাক্সওয়েলের ইনিংসের কথা আরেকবার মনে করার তো প্রয়োজন নেই।

এই বিশ্বকাপের চমক রাচিন রবীন্দ্র। ছবি: রয়টার্স

এবং এ ক্ষেত্রে ভারতের চেয়ে নিউজিল্যান্ডই হয়তো এগিয়ে থাকবে। ভারতের লাইনআপে প্রথাগত ব্যাটসম্যানেরই ছড়াছড়ি। হ্যাঁ, শচীন টেন্ডুলকার বা রাহুল দ্রাবিড় মতো নন রোহিত বা কোহলি, তাই বলে তারা হেনরিখ ক্লাসেন বা ফন ডার ডুসেনও নন। তাঁদের সবাইকে সেট হতে হয়, সেট হলেই কেবল তাঁরা পরে দ্রুত রান তুলে তা পুষিয়ে দিতে পারেন। নেদারল্যান্ডসের বিপক্ষে যেমন প্রথম পাঁচ ব্যাটসম্যানই ভালো করায় চার শ পেরিয়েছে ভারত। ওদিকে নিউজিল্যান্ডের লাইনআপে এ ‘দোষ’টা শুধু কেইন উইলিয়ামসন ও টম ল্যাথামের। 

ভারত দলে শুধু আইয়ার বা সূর্যকুমার যাদবই ওই ধরনের পাওয়ার ক্রিকেট খেলেন। এবং এই বিশ্বকাপে এখনো পর্যন্ত যাদবের সেরা রূপের দেখা মিলেনি বা সে সুযোগ হয়নি। ওদিকে গ্লেন ফিলিপস ছাড়া নিউজিল্যান্ডের প্রায় সব পাওয়ার হিটারই ফর্মে আছেন। সেমিফাইনালে নিউজিল্যান্ড যদি আগে ব্যাটিং পায়, তাহলে ভারতের দুশ্চিন্তার কারণ থাকবে যথেষ্ট।

এবার বোলিংয়ের দিকে নজর দেওয়া যাক।

কোহলি-রোহিতের রান হয়তো পাঁচ শ ছাড়িয়েছে, আইয়ারও করেছেন চার শর বেশি রান। কিন্তু এবার ভারতকে প্রতিটি ম্যাচে জয় এনে দিয়েছে তাদের বোলিং। বোলারদের শীর্ষ পাঁচে ভারতের কেউই নেই, এটাই বলে দিচ্ছে ভারতের বোলিং শক্তি। বুমরা, শামি, সিরাজ, কুলদীপ বা জাদেজা সবাই আছেন দুর্দান্ত ফর্মে। এ কারণেই হার্দিক পাণ্ডিয়ার চোটের পরও ষষ্ঠ কোনো বোলার ছাড়া নামতে ভয় পাচ্ছে না দলটি।

কিন্তু মুম্বাইয়ে খেলা বলেই নিউজিল্যান্ডেরও একটু সুযোগ আছে।  

ওয়াংখেড়েতে এখন পর্যন্ত যা দেখা গেছে, পেসারদেরই যা করার করতে হবে এখানে। এবং যে বোলারদের বাড়তি গতি আছে বা নতুন বলে সুইং ও সিম মুভমেন্ট আছে তাঁরাই ভালো করবেন। বিশেষ করে দ্বিতীয় ইনিংসের শুরুতে সুইং ম্যাচের ব্যবধান গড়ে দিতে পারে।

গত বিশ্বকাপের সেমিফাইনালে বৃষ্টিভেজা কন্ডিশনে ম্যাট হেনরি ভারতকে কাবু করে দিয়েছিলেন। এবারও হয়তো গত সেমিফাইনালের বোলিং লাইনআপের দেখা মিলত। অন্তত মূল চার বোলার হয়তো একই থাকত। কিন্তু হেনরি চোট পেয়ে বিশ্বকাপ থেকে ছিটকে পড়েছেন। ফলে ট্রেন্ট বোল্ট, লকি ফার্গুসন ও মিচের স্যান্টনারের পাশে চতুর্থ মূল বোলারটি টিম সাউদি।

ভারতের বোলিং লাইনআপ আছে দারুণ ফর্মে। ছবি: রয়টার্স

মুম্বাইয়ের উইকেট বিবেচনায় নিউজিল্যান্ডের জন্য এখন তা শাপেবর হতে পারে। এমনিতেই বাঁহাতি পেসের বিপক্ষে ভারতের টপ অর্ডারের অস্বস্তি সবার জানা, এখন সে সঙ্গে সাউদির সুইং শুরুতে একটু সুবিধা দিতে পারে নিউজিল্যান্ডকে, যা মুম্বাইয়ে হেনরি দিতে পারতেন না। আর মাঝের ওভারে বাড়তি গতিই ভরসা মুম্বাইয়ে। এবং ছন্দে না থাকলেও গতি তোলার ক্ষেত্রে এখন লকি ফার্গুসনের চেয়ে এগিয়ে খুব কম বোলারই আছেন।

এ বিশ্বকাপে গ্রুপপর্বে মাত্র তিনটি ম্যাচে অস্বস্তিতে পড়েছিল ভারতের ব্যাটিং লাইনআপ। প্রথম ম্যাচে অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে চেন্নাইয়ের ভয়ংকর ধীরগতির উইকেটে, ধর্মশালায় নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে এবং লক্ষ্ণৌতে কঠিন উইকেটে ইংল্যান্ডের বিপক্ষে।

সবগুলো ম্যাচে একটি জিনিস স্পষ্ট, যখনই পেসারদের বলে বাড়তি সিম মুভমেন্ট দেখা গেছে, ভারতের ব্যাটিং অস্বস্তিতে পড়েছে। সেটা হ্যাজলউড হোন, হোন সেটা ডেভিড উইলি বা ক্রিস ওকস। ফলে, নিউজিল্যান্ডের পাওয়ার ব্যাটিং আটকাতে মুম্বাইয়ের উইকেটে যদি বাড়তি প্রাণ দেওয়ার ব্যবস্থা করাও হয়- যেমনটা শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে দেখা গিয়েছিল, তেমনটা হলে নতুন বলে বোল্ট বা সাউদি কিন্তু রোহিতদের কাজটা কঠিন করে তুলবেন।

তবে সবকিছুর পরও ভারতই এগিয়ে থাকবে সব বিবেচনায়। দুর্দান্ত ফর্মে থাকা ভারতকে হারাতে অনেক কিছুই পক্ষে থাকতে হবে নিউজিল্যান্ডের। এবং এর মধ্যে সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ হচ্ছে টস। কারণ, মুম্বাইয়ে পেস বোলারদের যত দাপট সব দ্বিতীয় ইনিংসের শুরুতেই দেখা গেছে। প্রথমে ব্যাটিং করে পরে ফ্লাডলাইটের সুবিধা নেওয়া-এ কাজটা যে করবে, সেমিফাইনালটা সে দলই হয়তো জিতবে।

আজ ভারতের জয় ছাড়া অন্য যেকোনো ফল মানেই পাকিস্তানকে এবার টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের গ্রুপ পর্ব থেকেই বিদায় নিতে হবে।
শিখ সম্প্রদায়কে নিয়ে জাতিবিদ্বেষী রসিকতা করেছিলেন সাবেক উইকেটকিপার। তাঁর সে মন্তব্যে ক্ষোভ জানিয়েছেন সাবেক অফ স্পিনার হরভজন সিং। সমালোচনার মুখে হরভজন, আর্শদ্বীপ ও শিখ সম্প্রদায়ের কাছে ক্ষমা চেয়েছেন...
টুর্নামেন্টে টিকে থাকার স্বার্থে গ্রুপ পর্বের বাকি ম্যাচগুলোতে চিরপ্রতিদ্বন্দ্বী ভারতকেই সমর্থনের বিকল্প নেই বাবর আজমদের। তবে শুধু অতটুকুতেই হবে না, পাকিস্তানকে প্রার্থনায় থাকতে হবে, যাতে...
পাকিস্তানের হারে ৮ কোটি ৪০ লাখ টাকা লাভ হয়েছে তার। ৫ লাখ ১০ ডলার বাজি ধরেছিলেন। এবং সে বাজিটা রেখেছিলেন ভারতের ওপর। ম্যাচের এক পর্যায়ে মনে হচ্ছিল, পুরো টাকাটা জলে যাচ্ছে তাঁর।
গর্ভাবস্থা একটি স্বাভাবিক শারীরবৃত্তীয় প্রক্রিয়া হওয়া সত্ত্বেও এর বিভিন্ন পর্যায়ে রয়েছে বিভিন্ন ধরনের ঝুঁকি। পুরো গর্ভকালীন সময় জুড়ে একজন গর্ভবতী মায়ের শরীরে চলে হরমোনের পরিবর্তন। হরমোনের...
কারিতাস বাংলাদেশ সম্প্রতি ম্যানেজার পদে নিয়োগের জন্য বিজ্ঞপ্তি দিয়েছে। আগ্রহী প্রার্থীরা নির্ধারিত সময়ের মধ্যে অনলাইনে আবেদন করতে পারেন।
গাজীপুর সিটি করপোরেশনের কোনাবাড়ি এলাকায় ছিনতাইকারীদের ছুরিকাঘাতে নারী পোশাক শ্রমিকের মৃত্যু হয়েছে। গতকাল বুধবার রাত সাড়ে ৮টার দিকে ওই নারীর মৃত্যু হয়েছে। বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন কোনাবাড়ি থানার...
লোডিং...
পঠিতনির্বাচিত

এলাকার খবর

 
By clicking ”Accept”, you agree to the storing of cookies on your device to enhance site navigation, analyze site usage, and improve marketing.